English Version
আপডেট : ১২ অক্টোবর, ২০১৭ ১১:০৯

প্রভাব নেই জামায়াতের হরতালে, চলছে যানবাহন

অনলাইন ডেস্ক
প্রভাব নেই জামায়াতের হরতালে, চলছে যানবাহন

জামায়াতের আমির মকবুল আহমাদসহ কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার ও রিমান্ডে নেওয়ার প্রতিবাদে দলটির ডাকা হরতাল চলছে। তবে ভোর থেকে তাদের কোনো কর্মসূচি চোখে পড়েনি।

হরতাল থাকলে ভোর ৬টা থেকে অন্য দিনের মতোই রাজধানীতে যানবাহন চলাচল করছে। ছেড়ে যাচ্ছে দূরপাল্লার বাসও। আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে আমাদের রিপোর্টাররা এ তথ্য জানান। এদিকে জামায়াতের ডাকা হরতালকে কেন্দ্র করে রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্টে সকাল থেকে বাড়তি পুলিশ সদস্য দায়িত্ব পালন করতে দেখা গেছে। তবে কোথাও কোনো মিছিল-সমাবেশের খবর জানাতে পারেনি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।
হরতালে দায়িত্বরত আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এখন পর্যন্ত তারা হরতালের সমর্থনে কোনো মিছিল বা সমাবেশ দেখেননি। তবে হরতালকে কেন্দ্র করে যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে তারা সতর্ক রয়েছেন। ঢাকা মোট্রোপলিটন পুলিশের উত্তরা পূর্ব থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জানান, এ এলাকায় হরতালের কোনো প্রভাব নেই। শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিদিনের মতোই সড়কে যান চলাচল করছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে দায়িত্বরত এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, হরতালের কোনো কর্মকাণ্ডই নেই, সবকিছু স্বাভাবিক আছে। তারপরও যেকোনো ধরনের অপতৎপরতা রোধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সতর্ক অবস্থানে রয়েছেন।
রাজধানীর ব্যাংকপাড়া মতিঝিলে হরতালের কোনো চিত্র চোখে পড়েনি। অন্য দিনের মতোই স্বাভাবিক রয়েছে। মানুষের চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সাধারণ নিয়মেই বাড়ছে গণপরিবহনের সংখ্যা। ক্রমেই ব্যস্ত হয়ে উঠছে মতিঝিল এলাকা। দোকানপাটও খুলতে শুরু করছে। এ ছাড়া এয়ারপোর্ট সড়কে হরতালের কোনো আলামত নেই। হরতালকে উপেক্ষা করে যান চলাচল প্রতিদিনের মতোই স্বাভাবিক রয়েছে।

সোমবার রাতে গোপন বৈঠক থেকে গ্রেপ্তারের পর জামায়াত আমির মকবুল আহমাদ, নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার এবং সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমানসহ আটজনকে মঙ্গলবার বিকেলে ১০ দিনের রিমান্ডে পাঠান আদালত। দলীয় নেতাকর্মীদের মুক্তির জন্য এ কর্মসূচির ডাক দেয় জামায়াত।