English Version
আপডেট : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০৮:৩২

দূতাবাসে হামলা : লন্ডনে গ্রেফতার হতে পারেন তারেক

অনলাইন ডেস্ক
দূতাবাসে হামলা : লন্ডনে গ্রেফতার হতে পারেন তারেক

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেযারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।
 
রায়ের পর লন্ডনে বাংলাদেশ দূতাবাসে হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। রায় ঘোষণার পর লন্ডন সময় দুপুর ২টার দিকে বাংলাদেশ দূতাবাসে হামলার ঘটনা ঘটে।

হামলার ঘটনায় লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান গ্রেফতার হতে পারেন বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, রায় ঘোষণার পর বিক্ষোভে ফেটে পরে লন্ডন বিএনপির নেতাকর্মীরা। এসময় বেগম জিয়ার দুর্নীতি মামলার প্রতিবাদে দূতাবাসে স্বারকলিপি দিতে এসে ভাঙ্গচুর শুরু করে। এসময় পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে এবং সেখান থেকে যুক্তরাজ্য স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নাসির আহমেদ শাহিনকে আটক করে।

পরে শাহীনকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি জানান, তারেক জিয়ার নির্দেশেই তারা এই বিক্ষোভ করেছে। পুলিশ এখন ভাঙ্গচুরে উস্কানি ও মদদ দেওয়ার অভিযোগে তারেক জিয়াকে গ্রেফতারের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, ২০০৭ সাল থেকে তারেক লন্ডনে বসবাস করছেন। বাংলাদেশে একটি মামলায় দন্ডিত হয়ে আইনের চোখে তিনি ‘পলাতক’। তারেক ইন্টারপোলের ওয়ান্টেড ক্রিমিনাল। লন্ডনেও তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগের তদন্ত চলছে। লন্ডনে বাংলাদেশের দূতাবাস জানিয়েছে তারেক জিয়াকে প্রধান আসামি করে তারা ৫০ জন ব্যক্তির বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছে।

এদিকে, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ৫বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এ মামলায় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেযারম্যান তারেক রহমানে ১০ বছর কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটার দিকে এ রায় ঘোষণা করেন মামলার বিচারক ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ মো. আখতারুজ্জামান।

মামলার অন্যান্য ৫ আসামীকেও ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। 

সাজা প্রাপ্ত অন্য আসামীরা হলেন- সাবেক সাংসদ ও ব্যবসায়ী কাজী সালিমুল হক কামাল, সাবেক মুখ্যসচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ ও জিয়াউর রহমানের বোনের ছেলে মমিনুর রহমান। মামলায় শুরু থেকে পলাতক আছেন তারেক রহমান, কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও মমিনুর রহমান।

রায়ে ২কোটি ১০লক্ষ ৭১ হাজার টাকা সমপরিমান জরিমানাও ধার্য করা হয়েছে।