English Version
আপডেট : ১ অক্টোবর, ২০১৭ ১৪:০৭

পবিত্র আশুরা আজ

অনলাইন ডেস্ক
পবিত্র আশুরা আজ

আজ পবিত্র আশুরা। দশই মহররমের এই দিনে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের দৌহিত্র হযরত ইমাম হোসেন তার পরিবারসহ কারবালায় শহীদ হন। এ দিনটি আসমানী কিতাবসমূহের অনুসারীদের কাছেও তাৎপর্যপূর্ণ। তাই মুসলিম দুনিয়ায় এই দিনটিকে দোয়া, মোনাজাত আবার কেউ শোকের মাধ্যমে পালন করে থাকেন।


দিনটি ৬১ হিজরী তথা ৬৮০ খ্রিস্টাব্দের দশই মহররম। ইরাকের কুফা নগরীর অদূরে ফোরাত নদী তীরবর্তী কারবালা প্রান্তরে ইয়াজিদ বাহিনীর হাতে শাহাদাৎ বরণ করেন রাসুলের দৌহিত্র ইমাম হোসেন রাদিয়াল্লা তালা আনহুর পরিবার ও সঙ্গীসহ ৭২ জন। করুণ এ ঘটনা আজো শোকের সাথে স্মরণ করেন দুনিয়ার সব মুসলমান।

ঢাকা আলিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ অধ্যাপক সিরাজ উদ্দীন আহমদ বলেন, ‘পুরো মুসলিম বিশ্বের মানুষ হযরত ইমাম হোসেনকে (আ:) মেনে নিয়েছে। শুধু কুপার মানুষ বিশ্বাসঘাকতা করেছেন। এ ফোরাত নদীর যে পানির তার নিজের জন্য,পরিবার ও সহচরদের জন্য পানি সংগ্রহ করবে সেটাও হতে দিলো না।’

তিনি আরো বলেন, ‘আল্লাহ দুনিয়া সৃষ্টি করেছেন এ মহরম দিনে। দুনিয়া ধ্বংস হবে এ দিনে।’

গুরুত্বপূর্ণ নবীদের অনেকের জীবনেই দশই মহররমে ঘটেছে কোন না কোন তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা। তাই শুধু মুসলিম নয়, ইহুদী খ্রিস্টানসহ সব নবীর অনুসারীদের কাছে দিনটি তাৎপর্যপূর্ণ। আদম নবীর তওবা কবুল, হযরত মূসার ফেরাউনের কবল থেকে মুক্তি, হযরত ঈসার জন্ম ও আকাশে তুলে নেয়া এদিনই ঘটে। আইয়্যুব নবীর কুষ্ঠরোগ থেকে মুক্তি ও হযরত ইউনূসের মাছের পেট থেকে মুক্তি, হযরত সোলায়মানের সিংহাসন ফিরে পাওয়া ও নমরুদের অগ্নিকুণ্ড থেকে হযরত ইব্রাহীম আলাইহি ওয়া সাল্লামের রক্ষা পাওয়ার ঘটনাও এদিনেই ঘটে।

বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম মুফতি এহসানুল হক বলেন, ‘আশুরা দিনে রোজা রাখার ব্যাপারে দিনে রাসুল (স) বলেছেন আল্লাহ তায়ালা দিনে তার পূর্বে সমস্ত গুনাহ মাফ দিবেন।’

এদিনটিকে ঘিরে অন্যান্য ইবাদতের পাশাপাশি সুন্নী মুসলিমদের দুদিন নফল রোযা রাখার কথা হাদিসে পাওয়া যায়। বিশ্ব সভ্যতাকে এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে মুসলিমদের সর্বোচ্চ ত্যাগ শিক্ষার বড় উদাহরণ হতে পারে এদিনটি, এমনটাই মনে করেন ইসলামী বিশ্লেষকরা।